শিরোনাম
  ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ২ বাসের মুখোমুখি সংঘর্ষে আহত ২০       ব্রাহ্মণবাড়িয়ার জেল সুপার-ওসিসহ সাতজনের বিরুদ্ধে মামলার আবেদন       মুজিবনগরে পুলিশ কনস্টেবলের আত্মহত্যা       ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় মসজিদে-মসজিদে করোনামুক্তির দোয়া       বিজয়নগরে চাকুরীর নামে প্রতারনা,নিঃস্ব ছয়টি পরিবার       ভারতে টিকার বাড়লে বাংলাদেশও পাবে       ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় বিপুল পরিমাণ কারেন্ট জাল জব্দ       চলে গেলেন সাবেক আইজিপি এ ওয়াই বি আই সিদ্দিকী       সাংবাদিক ইউসুফ রুবেলের উপর হামলার তীব্র নিন্দা ও সন্ত্রাসীদের গ্রেফতারের দাবি জানিয়েছেন আন্তর্জাতিক সাংবাদিক ফোরাম।       ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় অক্সিজেন সঙ্কটে করোনা ইউনিটে রোগীদের হৈচৈ    


 

মাইনুদ্দীন চিশতী ব্রাহ্মণবাড়িয়া ;জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্ম শতবার্ষিকী উপলক্ষে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার কসবায় প্রধানমন্ত্রীর আশ্রয়ণ প্রকল্পের আওতায় দ্বিতীয় পর্যায়ে গৃহহীনদের জন্য নির্মিত হচ্ছে আরও ১ হাজার ৮৬৭টি পাকা ঘর। এর মধ্যে একসঙ্গে এক জায়গাতেই ৫০০ ঘর নির্মাণের উদ্যোগ নিয়েছে কসবা উপজেলা প্রশাসন।

ইতোমধ্যে মাটি ভরাটের কাজ শেষ হয়েছে। মাটির কম্প্যাকশান শেষ হলেই শুরু হবে একসঙ্গে ৫০০ ঘর তৈরির মহাযজ্ঞ। আর এ নির্মাণযজ্ঞ শেষ হলে এটিই হবে দেশের সবচেয়ে বড় আশ্রয়ণ প্রকল্প। খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, প্রধানমন্ত্রীর আশ্রয়ণ প্রকল্পের আওতায় প্রথম পর্যায়ে কসবা উপজেলার ১০৪ গৃহহীন পরিবারের মাঝে পাকা ঘর হস্তান্তর করা হয়েছে। এখন চলছে দ্বিতীয় পর্যায়ের ঘর নির্মাণ কাজ। এর মধ্যে উপজেলার বায়েক ইউনিয়নের মাদলা মৌজায় ১২০টি ঘরের নির্মাণ কাজ ৭০ শতাংশ শেষ হয়েছে। বাকি কাজ ঈদুল আজহার পর পই শেষ হবে বলে জানিয়েছে উপজেলা প্রশাসন। দৃষ্টিনন্দন ছোট ছোট টিলার পাদদেশে ঘরগুলো করা হচ্ছে। উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা, উপজেলা নির্বাহী প্রকৌশলী এবং ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যানরা নির্মাণ কাজের তাদারকি করছেন। আর প্রকল্পের সার্বিক দিক তদারকি করছেন কসবা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মাসুদ উল আলম। আসন্ন ঈদুল আজহার পর পরই ঘরগুলো হস্তান্তর করা যাবে বলে আশা করছে উপজেলা প্রশাসন।এ ছাড়া কসবা উপজেলার খাড়েড়া ইউনিয়নের মনকশাইর মৌজায় প্রায় সাড়ে ১২ একর জায়গাজুড়ে হচ্ছে দেশের সবচেয়ে বড় আশ্রয়ণ প্রকল্প। একসঙ্গে ৫০০ গৃহহীন পরিবারের ঠিকানা হবে জায়গাটিতে। ইতোমধ্যে মাটি ভরাটের কাজ শেষ হয়েছে। মাটির কম্প্যাকশান সম্পন্ন হলে চলতি বর্ষা মৌসুমের পর পরই শুরু হবে ঘরের নির্মাণ কাজ।প্রতিটি ঘরেই দুইটি করে শয়ন কক্ষ, একটি রান্নাঘর, একটি টয়লেট ও বারান্দা থাকবে। এ ছাড়া ঘরের সামনে সবজি অথবা ফুল বাগান করার জন্য ফাঁকা জায়গাও রাখা হবে। প্রতিটি পরিবারের জন্য সুপেয় পানি এবং বিদ্যুতের ব্যবস্থাও থাকবে।এ ব্যাপারে জানতে চাইলে কসবা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মাসুদ উল আলম বলেন, ‘দ্বিতীয় পর্যায়ে নির্মাণাধীন ঘরগুলোর মধ্যে ১২০টি ঘরের নির্মাণ কাজ ঈদুল আজহার পর পরই সম্পন্ন হবে। এরপরই ঘরগুলো গৃহহীনদের মাঝে হস্তান্তর করা হবে। এ ছাড়াও মনকশাইর মৌজায় ৫০০ ঘর নির্মাণের জন্য মাটি ভরাট কাজ সম্পন্ন হয়েছে। মাটির কম্প্যাকশান শেষ হলেই গুণগত মান বজায় রেখে ঘরগুলোর নির্মাণ কাজ শুরু হবে। দেশের অন্য কোথাও আশ্রয়ণ প্রকল্পের আওতায় একসঙ্গে এতগুলো ঘর নির্মাণ হয়নি। এর ফলে এটি হবে দেশের সবচেয়ে বড় আশ্রয়ণ প্রকল্প’।




কুমিল্লা জেলার লালমাই থানাধীন আজবপুর এলাকায় অভিযান চালিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে আপত্তিকর ছবি প্রেরণ করে হুমকি প্রদান ও আপত্তিকর প্রস্তাব করার অপরাধে ০১ জন’কে আটক করেছে র‌্যাব-৭

চট্টগ্রাম মহানগরীর বাকলিয়া থানাধীন হাফেজ নগর শাহ আমানত সংযোগ একটি মোটর সাইকেলভিতর বিশেষ কায়দায় লুকানো অবস্থায় ১৯,৩৮০ পিস ইয়াবা উদ্ধার র‌্যাব-৭

মাছ কাটা নারী শ্রমিকের মজুরি ‘পেটা’

দৈনিক বাংলার কথা পত্রিকার বার্তা সম্পাদক পদে নিয়োগ পত্র প্রসংগে।

ভালুকায় বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রকে মাদক মামলা দিয়ে ক্রসফায়ারের হুমকীর, পুলিশ সুপার বরাবর অভিযোগ

ইপিজেড এ চলছে ভন্ড কবিরাজ কামাল শাহ্ এর লক্ষ লক্ষ টাকার প্রতারণার বাণিজ্য

চট্টগ্রামে সাংবাদিকের নামে অপ-প্রচার মূলক মিথ্যা ও মানহানিকর লিফলেট বিতরণ, সাংবাদিক সমাজের নিন্দা।

ঝালকাঠির গৃহবধূর গালে কামড় দিয়ে মাংস ছিঁড়ে নিল আরেক গৃহবধূ

প্রকাশিত সংবাদের প্রতিবাদ

হালিশহর বেগমজান উচ্চ বিদ্যালয় এস.এস.সি ব্যাচ-১৯৯০এর ২দিন ব্যাপি উৎসবের উদ্বোধন